জরায়ু ক্যান্সার কেন হয়?

যৌনাঙ্গের স্বাস্থ্য রক্ষায় যা করবেন নারীরা। ছবি সংগৃহীত

বাজারে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ পরিষ্কার রাখার জন্য সুগন্ধি সাবান, ভেজা টিস্যু পেপার, জেলসহ নানা জিনিস পাওয়া গেলেও সেসব ব্যবহার করা উচিত নয় বলেই বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ৷

যৌনাঙ্গের যত্নে বিভিন্ন ধরনের পরিষ্কারক ব্যবহার করেন, সেরকম ১৪০০ নারীকে নিয়ে ক্যানাডায় সম্প্রতি একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে, এসব ব্যবহারের ফলে তাদের যোনি এবং মূত্রনালীতে সংক্রমণের ঝুঁকি অন্য নারীদের তুলনায় অনেক বেড়ে যায়।

জরায়ু ক্যান্সার

এসব পরিষ্কারক দ্রব্য থেকে অনেকসময় গোপনাঙ্গে ইনফেকশন, ফাঙ্গাস, জ্বালাপোড়া বা চুলকানি হতে পারে। তাছাড়া নারীর সন্তান ধারণ বাধাগ্রস্ত হতে পারে বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। নিয়মিত যৌনাঙ্গের যত্নে না নিলে হতে পারে জরায়ু ক্যান্সার। তাই জরায়ু ক্যান্সার থেকে বাঁচতে যৌনাঙ্গের স্বাস্থ্য রক্ষায় সচেতন হতে হবে।

আসুন জেনে নেই যৌনাঙ্গের স্বাস্থ্য রক্ষায় যা করবেন নারীরা।

কুসুম গরম পানি

প্রয়োজনে গোপনাঙ্গের আশেপাশে অর্গানিক সাবান ব্যবহার করা যেতে পারে৷ তবে যোনি বা লিঙ্গে শুধু হালকা গরম পানির ব্যবহারই যথেষ্ট।

সুতির আন্ডার প্যান্ট

নারী-পুরুষ সকলেরই সুতি কাপড়ের আন্ডার প্যান্ট পরা উচিত৷ সিন্থেটিক কাপড় থেকে অ্যালার্জিসহ নানা সমস্যা হতে পারে৷ যদিও আজকাল এই প্রজন্মের অনেক মেয়েরই আকর্ষণীয় ডিজাইন এবং বিভিন্ন ধরনের লেস বা কাপড়ের আন্ডার গারমেন্টসই বেশি পছন্দ, কিন্তু যৌনাঙ্গের জন্য তা উপকারী নয়৷

পরিচ্ছনতার উপকার

যৌনাঙ্গ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখলে যে শুধুমাত্র স্বাস্থ্যকর যৌনমিলনের আনন্দ পাওয়া যায়, তা-ই নয়, মানসিক ও শারীরিকভাবেও মানুষ সুস্থ বোধ করেন।

যৌনমিলনের আগে ও পরে

যৌনমিলনের আগে যৌনাঙ্গ পরিষ্কার করতে হবে, তবে ঠিক আগ মুহূর্তে নয়, এতে যৌনসুখ কিছুটা কমে যেতে পারে। যৌনমিলনের পরে যৌনাঙ্গ পরিষ্কার ও অবশ্যই প্রস্রাব করা উচিত৷

নতুন আন্ডারওয়ার

নারী, পুরুষ কারোরই কখনো অন্তর্বাস না ধুয়ে পরা উচিত নয়৷ এতে যৌনাঙ্গে সংক্রমণ বা অ্যালার্জি হওয়ার আশঙ্কা থাকে৷ এই নিয়ম অবশ্য সব বয়সের মানুষের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য৷

অতিরিক্ত টাইট অন্তর্বাস না পরা

এমন অন্তর্বাস পরা একেবারেই উচিত নয়। কারণ, এতে রক্ত চলাচল যেমন বাধাগ্রস্ত হয়, তেমনি বাতাস আসা-যাওয়ায় বিঘ্ন ঘটার কারণে যৌনাঙ্গে দুর্গন্ধ হতে পারে সহজেই৷

দুর্গন্ধ ও সংক্রমণ এড়াতে

যৌনাঙ্গে পানি ব্যবহারের পর অবশ্যই জায়গাটুকু টাওয়েল দিয়ে মুছে ফেলতে হবে। তা না হলে দুর্গন্ধ এবং মূত্রনালীতে ফাঙ্গাস হতে পারে।

মেয়েদের ঋতুস্রাবের সময়

ঠিক এ সময়টাতে মেয়েদের যৌনাঙ্গ বিশেষভাবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা এবং নিয়মিত প্যাড বদলানো উচিত৷ কারণ, স্যাঁতস্যাতে বা ভেজা প্যাড বা কাপড়ে সহজেই জীবাণু বাসা বাঁধে। আর তা থেকে হয়ে যেতে পারে বড় কোনো ক্ষতি।

মেনোপজ

অনেক নারীর ক্ষেত্রে হরমোনের তারতম্যের কারণে মেনোপজের আগে ও পরে তাঁদের যোনিপথ কিছুটা শুষ্ক হয়ে যায়৷ এক্ষেত্রে বাজার থেকে কেনা কোনো ক্রিম বা তেল ব্যবহার না করে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।